বরিশাল বারের ৪১ আইনজীবীর সনদ বাতিলের আবেদন

NewsBarisal.com

প্রকাশ : ডিসেম্বর ১৩, ২০২০, ৮:৪৮ অপরাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট : আইনজীবীর সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে অনৈতিক কর্মকাণ্ডে জড়াচ্ছেন ৪১ আইনজীবী। যারা হলফনামায় মিথ্যা দিয়ে বার কাউন্সিলের সনদ অর্জন করেছেন। বর্তমানে আইন পেশায় জড়িত না থাকলেও নিজেদের আইনজীবী পরিচয় দিয়ে বতর্কে জড়াচ্ছেন বলে অভিযোগ তাদের বিরুদ্ধে।

এসব অভিযোগ উল্লেখ করে ওই ৪১ আইনজীবীর সনদ বাতিলসহ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সচিব বরাবর আবেদন করা হয়েছে। সম্প্রতি বরিশাল জেলা আইনজীবী সমিতির সদস্য মো. জসিম উদ্দিন স্বাক্ষরিত ওই পত্রটি প্রেরণ করা হয়েছে।

এতে উল্লেখ করা হয়েছে, ‘বরিশালে ৪১ জন আইনজীবী হলফনামায় মিথ্যা তথ্য দিয়ে প্রতারণার মাধ্যমে বাংলাদেশ বার কাউন্সিল হতে সনদ হাছিল করেছেন। তারা বার কাউন্সিল আইন লংঘন করে বিভিন্ন স্থানে আইনজীবী হিসেবে পরিচয় দিয়ে অনৈতিক কর্মকাণ্ডে লিপ্ত থেকে পেশার সুমহান মর্যাদা ক্ষুন্ন করছেন।

ওই আবেদনে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, ‘সনদ গ্রহণের পূর্বে আবেদনকারীকে বার কাউন্সিল অ্যাক্টের বিধান অনুযায়ী অন্য পেশায় নিয়োজিত নন মর্মে ১ম শ্রেণীর ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হলফনামা প্রদান করতে হয়। এদের বিরুদ্ধে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণসহ চিরস্থায়ীভাবে আইন পেশা থেকে বহিষ্কারের জন্য বার কাউন্সিল সচিব বরাবর আবেদন করা হয়েছে।

আইনজীবী’র সনদ গ্রহণ করে অন্য পেশায় জড়িত এবং অভিযুক্ত আইনজীবীরা হলেন, ‘মোঃ আনোয়ার হোসেন হাওলাদার (সনদ নং ২৬৫)। তিনি বর্তমানে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হিসেবে কর্মরত।

মোঃ আবদুর রহমান খান (সনদ নং ৩১৬) বর্তমানে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা, মোঃ মোফাজ্জেল হোসেন পাইক (সনদ নং ৩৮০) বর্তমানে বাংলাদেশ শিল্প ব্যাংকের সিনিয়র অফিসার, মোঃ আব্দুল হাকিম (সনদ নং ৩৮৮) একই ব্যাংকের সিনিয়র অফিসার।

আলী আসগর ফকির (বরিশাল আইনজীবী সমিতি’র সদস্য নং ২০৩) বর্তমানে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি’র উপ-পরিচালক, মুশফিকুর রহমান তালুকদার টুনু (সদস্য নং ২৩৮) বর্তমানে আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের সিনিয়র অফিসার, এ বি এম আক্তারুজ্জামান খান (সনদ নং ৪৮১) অবসরপ্রাপ্ত উপজেলা খাদ্য অফিসার, মোঃ আনোয়ারুল হক (সনদ নং ৪৭৭) বর্তমানে শহীদ জিয়াউর রহমান ডিগ্রি কলেজ অধ্যক্ষ।

মোঃ নাসির উদ্দিন বার কাউন্সিল (সনদ নং ৪৯৮) বর্তমানে বরিশাল সিটি কলেজের ডেমোনেস্টেটর, সুনীল বরন হাওলাদার (সনদ নং ৫৩৪) বর্তমানে বরিশাল অক্সফোর্ড মিশন হাইস্কুলের শিক্ষক, মোঃ হানিফ মল্লিক (সনদ নং ৫৩৩) বর্তমানে তালুকদার হাট কলেজের ভাইস প্রিন্সিপাল, সুজিত কুমার দেবনাথ (সনদ নং ৫৩২) বর্তমানে বরিশাল সিটি কলেজ অধ্যক্ষ, সুরুচি রানী কর্মকর্তা (সনদ নং ৫৬৭) বরিশাল সিটি কলেজের সহকারী অধ্যাপক, এ কে এম জালাল আহম্মেদ (বরিশাল আইনজীবী সমিতির সদস্য নং-৩০৫) বর্তমানে আগরপুর কলেজের অধ্যক্ষ।

শৈলেন্দ নাথ রায় (সনদ নং ৫৮১) বর্তমানে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক, মোঃ রফিকুল ইসলাম (সনদ নং ৫৮৮) বর্তমানে আলেকান্দা বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক, মোঃ খলিলুর রহমান (সনদ নং ৪৮২) বর্তমানে সিএন্ডবি’র হিসাব রক্ষক, শুভাশিষ মন্ডল (সনদ নং ৬৯৪) বর্তমানে বাউফলের কালাইয়া ইদ্রিস মোল্লা কলেজ অধ্যাপক, মোঃ আবদুল বারেক (সনদ নং ৫৮৯) বর্তমানে দপদপিয়া ইউনিয়ন ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ, মোঃ শাজাহান মিয়া ( সনদ নং ৭৬০) বর্তমানে বাকেরগঞ্জের কাকরদা কলেজ অধ্যাপক।

এস এম ইলিয়াস উদ্দিন মল্লিক (সনদ নং ৭৮৬) বর্তমানে বিএসটিআই পিরোজপুরের কর্মকর্তা, দুলাল ব্যানার্জী (সনদ নং ৭৭৮) বর্তমানে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক, আরমান ফরিদ (সনদ নং ৭৯০) বর্তমানে স্বরুপকাঠি সরকারি পাইলট হাইস্কুলের সহকারী শিক্ষক, সুব্রত চক্রবর্তী (সনদ নং ৮০১) কুড়িয়ানা কবি রবিন্দ্রনাথ কলেজের সহকারী অধ্যাপক, ফাতেমা জোহরা বীনা (সনদ নং ৮১০) বর্তমানে মল্লিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা, মোঃ সালাউদ্দিন হাওলাদার লিটন (সনদ নং ৮১৩) বর্তমানে ধাপড়কাঠী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক।

মোঃ শফিকুল আলম রিয়াজ (সনদ নং ৮৭২) বর্তমানে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের প্রকৌশলী, মোঃ শহীদুল হক রিয়াজ (সনদ নং ৮৭৩) বর্তমানে ইউপি সচিব, মোঃ ফারুক বিন ওয়াহিদ (সনদ নং ৮৮৫) বর্তমানে রুপাতলী মাদ্রাসা’র সহকারী অধ্যাপক, মোঃ সেলিম হোসেন (সনদ নং ৯৬৩) বর্তমানে বরিশাল সিভিল সার্জন অফিসের প্রধান সহকারী, মোঃ নজরুল ইসলাম খসরু (সনদ নং ৯৫০) বর্তমানে নলছিটি ডিগ্রী কলেজের ডেমোনেস্টটর,

আকতার ফারুক জাহিদ (সনদ নং ৯৮৫) বর্তমানে সরস্বত বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক। মোঃ আবুয়াল সাইদ মামুন (সনদ নং ১০৩১) বর্তমানে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের প্রসেসর, রবিন্দ্র চন্দ্র দাস (বরিশাল সদস্য নং ৯০৯) বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের কর্মকর্তা, মোঃ জহিরুল ইসলাম (সনদ নং ৯৭৯) বর্তমানে উজিরপুর হাজী তাহের উদ্দিন ডিগ্রী কলেজের অধ্যাপক, মোঃ মনিরুল ইসলাম (সনদ নং ৬০২) বর্তমানে চরকাউয়া দাখিল মাদ্রাসা’র সহকারী শিক্ষক, লুনা মুন্সী (সনদ নং ৫৫৩) দপদপিয়া ইউনয়ন কলেজের অধ্যক্ষ।

মোঃ খলিলুর রহমান-১ (সনদ নং ৫৯৮) পাদ্রীশিবপুর ইউনিয়ন বাড়ী’র ইউপি সচিব, দীপ শঙ্কর গুপ্ত (সনদ নং ৮০০) বর্তমানে বাকত্তরা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক, মোঃ মিজানুর রহমান বাচ্চু (বরিশাল সদস্য নং ৭৮০) বর্তমানে গলাচিপা খোসের হাট মাধ্যমিক বিদ্যালয় সহকারী শিক্ষিক, মোঃ আবু বকর সিদ্দিক (সনদ নং ১০২১) বর্তমানে হিন্দু কল্যাণ ট্রাস্টের কর্মকর্তা।

 



সর্বশেষ সংবাদ