• এক্সক্লুসিভ
  • »
  • বরিশালের ভাটিখানায় এক পরিবারের মাদক কারবারীতে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী

বরিশালের ভাটিখানায় এক পরিবারের মাদক কারবারীতে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী

NewsBarisal.com

প্রকাশ : নভেম্বর ১৫, ২০২০, ১১:০৭ অপরাহ্ণ

আহমেদ জালাল : বরিশাল নগরীর ভাটিখানা পান্থসড়ক লাগোয়া ব্যাংকার জাহাঙ্গীর হোসেন’র মাদক ব্যবসায়ী দুই ছেলে দিনে দিনে বেপরোয়া হয়ে উঠছে। ইয়াবাসহ নেশাজাতীয় বিভিন্ন দ্রব্যের কারবারী করে আসলেও মা আর দুই বোনের আশ্রয় প্রশয় এবং শেল্টারে ক্রমেই বিপদগামীর দিকে ধাবিত হচ্ছে।

একের পর এক অপরাধ জগতে অপরাধের ফিরিস্তি রচনা করে চলছে। দুই ছেলের মধ্যে একজন হলো ইমাম। অপর ইয়াবা কারবারী ঈমন। দুই বোন মিলি আর জলি মাদক কারবারী ভাইদের মদদদাতা হিসেবে আখ্যায়িত। এদের মাদক কারবারীর বিষয়ে প্রতিবাদী ভূমিকায় পিতা জাহাঙ্গীর হােসেন থাকলেও তার কথা ধোপে টিকছে না। পিতা জাহাঙ্গীরকে পরিবারের কেউ পাত্তাই দিচ্ছে না। বরংচ জাহাঙ্গীর হোসেন তাদের অন্যায় অপকর্মের প্রতিবাদ করলে প্রাণে শেষ করে দিতে প্রস্তুত থাকে মাদক ব্যবসায়ী ছেলেরা। এক্ষেত্রে ঈমনের মা এবং দুই বোনের ভূমিকা বেশ বিতর্কিত।

বছর দুয়েক আগে ছেলের অপরাধের প্রতিবাদ করেছিলেন জাহাঙ্গীর হোসেন। তৎকালীন সময়ে তেলেবেগুনে জ্বলে উঠে ইয়াবা ব্যবসায়ী ছেলে ঈমন। অত:পর ধারালো অস্ত্র নিয়ে পিতা জাহাঙ্গীরকে কুপিয়ে টুকরা টুকরা করার হুঙ্কার দিয়ে খুঁজতে থাকে। ছেলে ঈমনের হাত থেকে জীবন বাঁচাতে তখন জাহাঙ্গীর হোসেন বাসার একটি রুমে আশ্রয় নেয়। সেখানে গিয়েও কোপানের চেষ্টা করে ঈমন।

পরবর্তীতে অবস্থা বেগতিক দেখে কৌশলে সেখান থেকে পালিয়ে তাৎক্ষনিক কাউনিয়া থানায় চলে যান জাহাঙ্গীর হোসেন। এরপর পুলিশ বাসায় এসে ঈমনকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। কয়েক ঘন্টা পর মা,বোন মিলে মুছলেখা দিয়ে থানা থেকে ছাড়িয়ে আনে ঈমনকে। এরকম অসংখ্য অন্যায় অপকর্মের অভিযোগ রয়েছে ঈমনের বিরুদ্ধে।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, ব্যাংকার জাহাঙ্গীর হোসেন এর পরিবারের বলা যায় সকল সদস্যই মাদক ব্যবসায়ের সঙ্গে জড়িত রয়েছে। বিশেষ করে এই জাহাঙ্গীর হোসেন এর দুই ছেলে অনেক আগ থেকেই মাদক কারবারির সঙ্গে সম্পূক্ত থাকার ঢের অভিযোগ রয়েছে। এলাকায় মাদক কারবারি হিসেবে পরিচিত ইমাম ও ঈমন। এরা এলাকায় কিশোর সন্ত্রাসের সঙ্গে সম্পূক্ত থেকে মাদক বাণিজ্যের পাশাপাশি নানাবিধ অন্যায় অপকর্ম করে যাচ্ছে। মাদক কারবারী ইমাম পুলিশের হাতে একাধিকবার আটকও হয়েছিল।

বর্তমানে রাজধানী ঢাকা, ময়মনসিংহ ও বরিশালে বসবাস করছে। মাদক ব্যবসায়ের কানেকশনে ইমাম এখন ঢাকা টু বরিশাল রুটে মাদকের শক্তিশালী নেটওয়ার্ক গড়েছে বলে অসমির্থত একাধিক সূত্রের ভাষ্য। আর ইমামের ছোট ভাই কলেজ ছাত্র ঈমন ইয়াবা বাণিজ্যে বেপরোয়া হয়ে উঠছে। বরিশাল নগরীর বিভিন্ন মাদক আস্তানায় ঈমনের নেটওয়ার্ক গড়ে উঠেছে। পলাশপুর, স্টেডিয়াম বস্তি, শেরে বাংলা মেডিকেলের সামনে, ত্রিশ গোডাউন, মুক্তযোদ্ধা পার্ক, ভাটিখানাসহ আরো অনেক এলাকায় মাদক ব্যবসায়ী ঈমন ও তার সহযোগিরা ইয়াবার নেটওয়ার্ক বিস্তৃতি করে চলছে।

পুলিশসহ স্থানীয়রা জানায়, এই পরিবারের বিরুদ্ধে অনেক আগ থেকেই মাদক কারবারির অভিযোগ রয়েছে। সূত্র জানায়, গত ১২ নভেম্বর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ত্রিশ গোডাউন এলাকায় মাদক কারবারী করতেছিল ব্যাংকার জাহাঙ্গীর মিয়ার পুত্র ঈমন ও তার সহযোগিরা। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ সেখানে অভিযান চালিয়ে ঈমনের সহযােগি ভাটিখানা আকতারুনেচ্ছা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় লাগোয়া বাবুলের ছেলে তাফসিরকে ২০ পিচ ইয়াবাসহ আটক করে।

ওই সময়ে মাদক কারবারির অন্যতম হোতা ঈমন পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। এরপর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যারাতে ডিবি পুলিশের একটি টিম ভাটিখানায় জাহাঙ্গীর মিয়ার বাসায় অভিযান চালায়।
অনুসন্ধানী সূত্রগুলো বলছে, পুলিশী অভিযানে খবর পেয়ে ইয়াবা ব্যবসায়ী ঈমন নিরাপদ আশ্রয়ে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। রহস্যজনক কারণে বাসায় অভিযানের সময় মাদক কারবারী ঈমনের বোন মিলিও পালিয়ে যায়।

কলেজে পড়ালেখার পাঠ চুকিয়ে প্রবাসী(জার্মান) এক যুবকের সঙ্গে বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হওয়া মিলি কেন পালিয়ে গেছেন,বিষয়টি স্পষ্ট নয়। কৌশলে পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে মিলির হঠাৎ আত্মগোপনে যাওয়ার বিষয়ে নানাজনে নানা কথা বলছে। অসমর্থিত একাধিক সূত্রের ভাষ্য, হঠাৎ পুলিশ দেখে আতঙ্ক দানা বাধে জাহাঙ্গীর মিয়া,তার স্ত্রী এবং বিবাহিত দুই মেয়ের। জামাই বরিশালে একটি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত।

চলন বলনে জামাই’র মাঝে ভদ্রতার ছাপ রয়েছে। প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কর্মরত জাহাঙ্গীর মিয়ার বড় মেয়ে জলি’র স্বামী ভাড়া থাকছেন শশুরের ভবনে। পুলিশী অভিযান টের পেয়ে কলেজ পড়ুয়া ছোট ভাইকে রক্ষায় ভূমিকা রাখেন বোন মিলি। এরকমও কথা ওঠছে, তাহলে কি ঈমনের মাদক নিরাপদে রাখতে মাদক নিয়ে নিরাপদস্থানে পালিয়ে গিয়েছিল বোন মিলি। অবশ্য পুলিশী অভিযান শেষে মিলি নিজ বাসভবনে ফিরে আসার খবর মিলেছে।

সূত্রের ভাষ্য, জাহাঙ্গীরের দুই ছেলে ইমাম, ঈমন নেশাজাতীয় দ্রব্য দীর্ঘদিন ধরে বিকিকিনি করে আসছে। আর এই দুই ভাইয়ের শেল্টারদাতা হচ্ছে তাদের বোন মিলি। বড় বোন জলি স্কুলে চাকুরী করলেও মাদক ব্যবসায়ী ভাইদের আশ্রয় প্রশয়দাতা। জাহাঙ্গীর মিয়ার স্ত্রী হচ্ছে মাদক ব্যবসায়ী ছেলেদের আশ্রয় প্রশয়ের মূল হোতা। মা এবং বোনদের কারণেই ইমাম আর ঈমন বিপদগামী হয়েছে বলে স্থানীয় একাধিক সূত্রের ভাষ্য।

স্থানীয়রা জানান, জাহাঙ্গীর মিয়ার দুই পুত্র ইমাম ও ঈমনের মাদক কারবারীতে এলাকায় মাদকের ভয়াল থাবায় ধ্বংসের অতল গহ্বরে হারিয়ে যাচ্ছে ছাত্র ও যুবসমাজ। তরুণদের সকল শক্তি, সাহস আর উদ্দীপনা হারিয়ে যাচ্ছে মাদকের ভয়াল গ্রাসে। এদের লাগাম টেনে ধরার দাবী জানিয়েছেন এলাকার শান্তিপ্রয় নারী পুরুষ। এজন্য আইন শৃঙ্খলা বাহিনী দায়িত্বশীল পর্যায়ের কর্মকর্তাদের আশু দৃষ্টি কামনা করেছেন এলাকার সচেতন মহল।

এই ব্যাংকার জাহাঙ্গীর হোসেন পরিবারের বিরুদ্ধে মাদকের সঙ্গে সম্পূক্তসহ অন্তহীন অভিযোগ রয়েছে। রয়েছে তাদের বর্বরতার নানা চিত্র। তাদের বর্বরতায় বিবেক কেঁপে ওঠে। এ এক অসভ্যয় ভরপুর পরিবার। একটি নির্ভরযোগ্য সূত্রের ভাষ্য, জাহাঙ্গীর পরিবারের বিরুদ্ধে বেশ কয়েক বছর আগে এক শিশুকে হত্যাচেষ্টারও অভিযোগও রয়েছে। জাহাঙ্গীর পরিবার কর্তৃক হত্যাচেষ্টা বিষয়টি নিয়ে পরবর্তীতে অনুসন্ধানী আকারে প্রতিবেদন প্রকাশ হবে।

এদিকে,ব্যাংকার জাহাঙ্গীর মিয়ার পরিবারের মাদক বাণিজ্যের বিষয়টি কাউনিয়া থানা পুলিশও অবহিত। এরআগে বেশ কয়েকবার পুলিশ জাহাঙ্গীর মিয়ার বাসায় অভিযান চালিয়েছে।
বরিশাল মেট্রোর ডিবি এসআই মহিউদ্দীন আহমেদ জানান,গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ত্রিশ গোডাউন এলাকা থেকে তাফসির নামে একজনকে ইয়াবাসহ আটক করে পুলিশ। তৎসময়ে আরেক মাদক কারবারী ঈমন পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।

এরপর ভাটিখানা পান্থসড়ক লাগোয়া স্থানে তার বাসায় অভিযান চালানো হলে ঈমনকে পাওয়া যায়নি। তিনি আরো জানান, এ ব্যাপারে ঈমনকে পলাতক দেখিয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এবং মাদক কারবারী ঈমনকে গ্রেপ্তারে জোর প্রচেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ। পাশাপাশি মামলার তদন্ত চলছে। আরো যদি কেউ জড়িত থাকে সেক্ষত্রে তাদেরকেই আইনের আওতায় আনা হবে বলে মন্তব্য করেন পুলিশের চৌকশ কর্মকর্তা এসআই মহিউদ্দীন আহমেদ।

 



সর্বশেষ সংবাদ
রাজাপুর থানা মুক্ত দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত ইসলামিয়া হাসপাতালের ওয়ার্ড বয় রুম্মানের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ স্মৃতির পাতায় স্বনামধন্য আইনজীবী সাংবাদিক আব্দুল কাইয়ুম হিজলায় কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা বাকেরগঞ্জের মদ বিক্রেতা লুকাস আব্রাহম গোমেজকে ৭ বছরের কারাদন্ড ঝালকাঠির মাদক ব্যবসায়ি জুয়েলকে ১০ বছরের কারাদন্ড বরিশাল প্রেসক্লাব সভাপতিসহ তিন সদস্য’র সুস্থতা কামনা তজুমদ্দিনে ইন্সুরেন্স কর্মকর্তার বিয়ের প্রলোভনে শারীরিক সম্পর্ক, বিয়ে না করলে আত্মহত্যার হুমকি নারী কর্মীর বাবুগঞ্জে আওয়ামীলীগ নেতাদের সুস্থতা কামনায় দোয়া মোনাজাত এমপি শাহে আলমের নেতৃত্বে শিক্ষা বিপ্লবে বানারীপাড়া