• জাতীয়
  • »
  • মুলাদীতে চলছে মা ইলিশ ধরার মহা উৎসব; নিরব প্রশাসন

মুলাদীতে চলছে মা ইলিশ ধরার মহা উৎসব; নিরব প্রশাসন

NewsBarisal.com

প্রকাশ : অক্টোবর ১৯, ২০২০, ৬:০৩ অপরাহ্ণ

মেহেদী হাসান, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, মুলাদী ।।

মুলাদীতে চলছে মা ইলিশ নিধনের মহা উৎসব। ঘটনার বিবরন ও সরেজমিন ঘুরে দেখা যায় গত ১৪ অক্টোবর মা ইলিশ রক্ষার অভিযান শুরু হলেও প্রশাসন দায়সারা ভাবে অভিযান পরিচালনা করছে।

মুলাদী উপজেলায় জয়ন্তী, নয়াভাংগুলী ও আড়িয়াল খা নদীতে মীরগঞ্জ, মিয়ারচর, পাইতিখোলা, বার্নিমর্দন, নাজিরপুর, রামচর, সফিপুর, চরমালিয়া, মৃধার হাট রাত ৩টা থেকে সকাল ৯ টা পর্যন্ত, বিকাল ৩ টা থেকে রাত ১০ পর্যন্ত উপরোক্ত স্থানগুলোতে কয়েক হাজার জেলে জাল ফেলে মা ইলিশ নিধন করছে।

কিন্তু মুলাদী উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা ও নির্বাহী কর্মকর্তা ৬টি ট্রলার ১টি স্পিটবোর্ড ও নৌ পুলিশ ফাঁড়ি দুইটি পুলিশ বোর্ড নদীতে থাকার কথা থাকলেও সকাল ৯টা অভিযান শুরু করে ৩টার মধ্যে শেষ করে। রাত ১০ টায় শুরু করে রাত ৩টার পূবেই অভিযান বন্ধ করে। মূলত যখন মা ইলিশ নিধন করার সময় ঠিক তখনই অভিযান বন্ধ থাকে ফলে লক্ষ লক্ষ মা ইলিশ মুলাদীতে নিধন করা হচ্ছে।

এ ব্যাপারে মৎস্য কর্মকর্তার কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান আমাদের জনবল খুবই কম তার মধ্যে আমার প্রতিদিন ১০১ ও ১০২ ডিগ্রী জ্বর নিয়েই অভিযান পরিচালনা করছি । উপজেলার বিভিন্ন দপ্তর থেকে ৭/৮ জন কর্মকর্তা অভিযান পরিচালনার জন্য দিলেও ভাগ করে ২ টাইম অভিযান করা হয়।

এ বিষয় এলাকার সচেতন মহল জানায় অভিযানের ট্রলার দিনে ও রাতে অসাধু জেলেদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যাবস্থাপনা নিয়ে নদী থেকে জাল তুলে মাছ উদ্ধার করে জাল পুড়িয়ে অভিযান শেষে উদ্ধারকৃত মাছ ভাগাভাগি করে নিয়ে যায়।

গৌরনদী ও বাবুগঞ্জ থানার আওতায় আড়িয়াল খা নদীর একাংশ থাকলেও তাদের অভিযানের ধরন পুলিশ দিয়ে শুধু মাছ উদ্ধারের কাজ পরিচালনা করছে বলে জানা যায়। গতকাল রবিবার সন্ধায় মিয়ারচর ব্রিজে সংলগ্ন সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে শত শত মানুষের উপ¯ি’তিতে প্রায় ২ লক্ষ টাকার মা ইলিশ বিক্রী করছে জেলেরা এর মধ্যে আরমান, আসাদ, বাদশা ও খোকন বেপারীর নাম জানা গেছে এখানেও আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার কেউ নেই।

এ বছরের অভিযানে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও মেম্বার সাহেবরা মৎস্য অভিযানে কোন সহযোগিতা করছে না কারন আসন্ন ইউপি নির্বাচনে ভোট হারানোর ভয়ে।
তবে উপরোক্ত এলাকার জন সাধারন জানিয়েছেন উর্ধতন কর্তৃপক্ষ সকাল ও সন্ধায় অভিযান পরিচালনা না করলে কোন দিনই মা ইলিশ রক্ষা করা যাবেনা।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শুভ্রা দাসের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান নির্ধারিত অভিযান পরিচালনা করার টিম থাকার পরেও ২/১ দিন পর পর আমি নিজে ও সহকারী কমিশনার ভূমি আলাদা আলাদা ভাবে অভিযান পরিচালনা করে থাকি।

 



সর্বশেষ সংবাদ