• বরিশাল
  • »
  • প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে ভুয়া ধর্ষণ মামলা করায় বাদীর ৫ বছরের জেল

প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে ভুয়া ধর্ষণ মামলা করায় বাদীর ৫ বছরের জেল

NewsBarisal.com

প্রকাশ : অক্টোবর ৯, ২০১৯, ১০:৪২ অপরাহ্ণ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট ॥ প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে হয়রানিমূলক মিথ্যা ধর্ষণ মামলা দায়েরের দায়ে মামলার বাদী লাকি বেগমকে ৫ বছরের কারাদন্ড দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল। এছাড়া ৫ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরো ৬ মাস কারাদন্ডের আদেশ দেয়া হয়েছে।

আজ বুধবার বরিশাল নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোঃ আবু শামীম আজাদ এ রায় দেন। দন্ডপ্রাপ্ত লাকি বেগম বাকেরগঞ্জ উপজেলার চরাদী ইউনিয়নের বলইকাঠী গ্রামের রফিক সিকদারের মেয়ে।

এজাহার সূত্রে জানা গেছে, বাকেরগঞ্জের বলইকাঠী গ্রামের আমিনুল ইসলামের সাথে একই এলাকার রফিক সিকদারের জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এরই ধারাবাহিকতায় ২০১১ সালের ২ জুলাই রফিক সিকদার তার লোকজন নিয়ে আমিনুল সিকদারের জমি দখলের চেষ্টা চালায়।

জমি দখলে ব্যর্থ হয়ে ঘটনার দুই দিন পর রফিক সিকদার তার প্রতিপক্ষ আমিনুল সিকদারকে ফাঁসাতে মেয়ে লাকি বেগমকে দিয়ে আমিনুল সিকদারের বিরুদ্ধে বাকেরগঞ্জ থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করান।

২০১৩ সালের ২৭ মার্চ তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই নজরুল ইসলাম মামলার চুড়ান্ত রিপোর্ট জমা দেন। ট্রাইব্যুনাল চুড়ান্ত রিপোর্ট আমলে নিয়ে আমিনুল সিকদারকে মামলার দায় থেকে অব্যাহতি দেন।

পরে একই বছর ২১ মে আমিনুল ইসলাম তার বিরুদ্ধে ধর্ষণের মিথ্যা মামলা দায়ের করার প্রতিকার চেয়ে আদালতে লাকি বেগমসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। ট্রাইব্যুনাল ৫ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে গতকাল ওই রায় ঘোষণা করেন।

 



সর্বশেষ সংবাদ
পটুয়াখালীতে মোবাইলে ভয়ভীতি দেখানোয় নারী ভাইস চেয়ারম্যানের জিডি পিটিয়ে জখম, মুলাদীর একজনকে ৫ বছরের কারাদন্ড মুলাদিতে দুই মাদক কারবারিকে ৩ বছর করে কারাদন্ড মেহেন্দিগঞ্জে যুবতীকে ধর্ষণ শেষে হত্যার চেষ্টা, মামলা দায়ের নাজিরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে আজীবন দাতা সদস্য ও প্রতিষ্ঠাতা সদস্যকে বাদ দিয়ে তফসিল ঘোষণা, মামলা রিফাত হত্যা: তোকে ভুলতে পারি নারে ভাইয়া, রিফাতের বোন প্রতিবন্ধিকে জমি থেকে উৎখাতের পায়তারা, ফেঁসে যাচ্ছেন সার্ভেয়ার আল আমিন বরিশাল জেলা আ’লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত আগৈলঝাড়ায় পুত্রবধূ নির্যাতনের মামলায় শাশুড়ি গ্রেফতার কাঁঠালিয়ায় অটোবাইকের চাপায় শিশু নিহত
%d bloggers like this: